গ্যাস্ট্রিক বা অ্যাসিডিটি থেকে মুক্তি চান ? এই ২১টি ঘরোয়া উপায় আপনাকে সাহায্য করবে… –

0
23

বর্তমান সমাজে অ্যাসিডিটির সমস্যায় ছোট বড় প্রায় প্রত্যেকেই ভুগতে দেখা যায়। জল কম খাওয়া, রাতজাগা, দুশ্চিন্তা, অতিরিক্ত ঝাল খাওয়া, এই সব কারনে বেশী অ্যাসিডিটি হতে দেখা যায়। বেশী পরিমানে মদ খেলেও এই সমস্যা হয়। এর ফলে মাথার চুল উঠে যায়, পেট বাথা ইত্যাদি হতে পারে। এই অ্যাসিডিটির থেকে মুক্তির ২১টি ঘরোয়া উপায় জেনে নেওয়া যাকঃ

১. পাকস্থলিতে অ্যাসিডিটির মাত্রা ঠিক রাখতে রোজ সকালে এক গ্লাস করে জল খাওয়া উচিত। ২. এক গ্লাস ঠাণ্ডা দুধ খান প্রতিদিন আর দেখুন চমক। ওষুধে যা কাজ হয় না সেই কাজ হবে এই দুধে, কারন দুধের মুল উপাদান ক্যালসিয়াম পাকস্থলিতে অ্যাসিড তৈরি হতে দেয় না।

৩. রোজ সকালে ৩-৪টে গাছ থেকে পেরে টাটকা তুলসি পাতা খান। এই তুলসি পাকস্থলিতে গ্যাস্ট্রিক অ্যাসিডের পরিমাণ নিয়ন্ত্রনে রাখে। ৪. গুড় খেলেও নাকি অ্যাসিডিটির সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। তাই আর দেরি না করে রোজ খাওয়ার পর একটু করে গুড় খেয় নিন। বিশেষ করে গরমকালে গুড় খাওয়া খুবই উপকারি, এর ফলে শরীরের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রনে থাকে।

৫. খুব বেশী অ্যাসিডিটি হলে এক টুকরো আদা খেয়ে নিন। ৬. ৩-৪টে পুদিনা পাতা জলে ফুটিয়ে মধু দিয়ে খেলে উপকার পাবেন অ্যাসিডিটি থেকে। ৭. রোজ সকালে যদি খালিপেটে অ্যালোভেরার জেল খেতে পারেন তাহলে খুব উপকার পাবেন। ৮. বেশী ঝাল, রিচ খাওয়ার পর ১ গ্লাস ঠাণ্ডা বাটারমিল্ক খেলে অ্যাসিডিটি থেকে মুক্তি পাবেন।

৯. নারকেলের দুধে আছে হাই ফাইবারের জাদু, যা খুব ভালো করে খাবারকে হজম করাতে সাহায্য করায়। ১০. রোজ খাওয়ার পর একটু মৌরি বা সকালে খালিপেটে মৌরি ভেজানোর জল খেতে পারেন। ১১. আনারসের সরবতে সামান্য নুন দিয়ে খেতে পারেন, এতেও অ্যাসিডিটি থেকে মুক্তি পাবেন।

১২. এক চামচ জিরে, ধনে, মৌরি গুঁড়ো চিনি দিয়ে খালি পেটে খেলে হজমের সমস্যা দূর হয়ে যাবে। ১৩. প্রতিদিন এক চামচ করে আমলা খাওয়া খুব উপকার। ১৪. রোজ খাওয়ার পর জোয়ান খান বা জোয়ান জলে ফুটিয়ে সেই জল ছেঁকে খেতে পারেন, খুব উপকার পাবেন।

১৫. দারুচিনি গ্যাস্ট্রিক আলসার হওয়ার থেকে বাধা দেয়। এটি বিপাক ক্রিয়াতেও সাহায্য করে। ১৬. রোজ দুপুরে খাওয়ার পর একটা করে কলা খান, পেটের গোলযোগ দূর করতে কলা খুব উপকারি। ১৭. সব ধরনের সবজি রায়তা বানিয়ে খেতে পারেন। যেমন শসা, টমেটো, পেয়াজ, আর সঙ্গে একটু টকদই।

১৮. রসুনের মধ্যে আছে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট যা অতিরিক্ত অ্যাসিড কমাতে সাহায্য করে। ঈষদুষ্ণ গরম দুধে রসুন দিয়ে খেলে উপকার পাবেন। ১৯. কাঁচা বাদাম খেলেও অ্যাসিডিটি থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। ২০. রোজ সকালে উঠে এক গ্লাস গরম জলে লেবুর রস দিয়ে খেলে অনেকটা উপকার পাওয়া যাবে।

২১. প্রতিদিন খাবারের পাতে যদি পেঁপে খাওয়া যায় তাহলে এই অ্যাসিডিটি থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। ওপরের এইসব নিয়ম গুলো মেনে চলুন। আর সঙ্গে বেশী করে জল খান আর ৭-৮ ঘণ্টা ঘুমান, তাহলেই সুস্থ থাকবেন। আর মনের শান্তি অবশ্যই দরকার।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY