৫ ছাত্রলীগ-যুবলীগ নেতার মৃত্যুতে শোকে স্তব্ধ গোপালগঞ্জ

0
10

খুলনায় সড়ক দুর্ঘটনায় ৫ ছাত্রলীগ ও যুবলীগ নেতার মৃত্যুতে শোকে স্তব্ধ গোপালগঞ্জ। রবিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) রাতে খুলনার রূপসা সেতু এলাকায় ট্রাক-প্রাইভেটকারের মুখোমুখি সংঘর্ষে ওই ৫ নেতা নিহত হন। তাদের মৃত্যুর খবরে গোপালগঞ্জের সর্বত্র শোকের ছায়া নেমে আসে। নিহতদের বাড়িতে চলছে শোকের মাতম। তাদের মরদেহ বাড়িতে পৌঁছালে স্বজনদের আহাজারিতে আকাশ বাতাস ভারি হয়ে উঠে।

নিহত পাঁচজন হলেন- গোপালগঞ্জ শহরের সবুজবাগের অ্যাডভোকেট আবদুল ওয়াদুদ মিয়ার ছেলে ও গোপালগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুব হাসান বাবু, একই এলাকার মৃত আলাউদ্দিন শিকদারের ছেলে ও গোপালগঞ্জ সদর যুবলীগের সহ-সভাপতি এস.এম সাদিকুল আলম সাদিক, শহরের থানা পাড়ার গাজী মিজানুর রহমান হিটুর ছেলে ও জেলা ছাত্রলীগের ছাত্র বৃত্তি বিয়ষক সম্পাদক ওয়ালিদ মাহমুদ উৎসব, শহরের কুয়াডাঙ্গা এলাকার রসুলপাড়ার আলমগীর হোসেন মোল্লার ছেলে ও জেলা ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক সাজু আহমেদ এবং চাঁদমারীর ওয়াহিদ গাজীর ছেলে ও জেলা ছাত্রলীগের সদস্য অনিমুল ইসলাম গাজী। এদের মধ্যে সাদিকুল গাড়ি চালাচ্ছিলেন। সাদিক বাদে বাকি সবাই গোপালগঞ্জ সরকারি বঙ্গবন্ধু বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের শিক্ষার্থী।

লবণচরা থানার ভারপ্রপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শফিকুল ইসলাম জানান, ৫ নেতা প্রাইভেটকারে করে (ঢাকা মেট্রো গ ৩৫-০০২৫) খুলনা থেকে গোপালগঞ্জে ফিরছিলেন। বিপরীত দিক থেকে আসা সিমেন্টবোঝাই একটি ট্রাকের (ঢাকা মেট্রো ট ১৮-২৫৮৪) মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে প্রাইভেটকারের ভেতরে থাকা পাঁচ ছাত্রলীগ ও যুবলীগ নেতা মারা যান।

আজ সোমবার (১১ ফেব্রুয়ারি) সকালে খুলনা থেকে নিহত পাঁচ জনের মরদেহ গোপালগঞ্জ শহরের বাড়িতে এসে পৌঁছায়। এরা পাঁচজনই বন্ধুর মতো চলাফেরা করতেন। তারা মাদকবিরোধী সংগঠনেও সক্রিয় ছিলেন। রবিবার খুলনায় পাঁচজনই বেড়াতেই গিয়েছিলেন। তাদের লাশ বাড়িতে এসে পৌঁছানোর পরই পরিবারের সদস্য, প্রতিবেশী ও স্বজনদের আহাজারিতে শোকাবহ পরিবেশ সৃষ্টি হয়।

এ সময় গোপালগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মী, স্বজন, প্রতিবেশীরা নিহতের বাড়িতে ছুটে যান।

আজ বাদ জোহর গোপালগঞ্জে শেখ ফজলুল হক মণি ষ্টেডিয়ামে স্টেডিয়ামে নামাজে জানাজা শেষে তাদের দাফন করা হবে।

 

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY