স্বপ্ন নিয়ে প্রবাসে, ১০ দিনের মাথায় মৃত্যু!

0
40

মাত্র ১০ দিন আগে ঢাকা আগারগাঁও অফিস থেকে মালয়েশিয়ায় পাঠানো হয় পাসপোর্ট বিভাগের কর্মী সাইফুল ইসলামকে (২৭)। রোববার (৭ জানুয়ারি) তিনি জ্বরে আক্রান্ত হলে বুধবার (১০ জানুয়ারি) স্থানীয় একটি হাসপাতালে ভর্তি হন। সেখানেই বৃহস্পতিবার (১১ জানুয়ারি) মারা যান তিনি।

জানা গেছে, জ্বরে আক্রান্ত হয়ে বিশ্রামে থাকা অবস্থায় বুধবার (১০ জানুয়ারি) সন্ধ্যার পর থেকে তার শরীরিক অবস্থার অবনতি হলে দ্রুত আমপাংয়ের কেপিজে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ সময় ডাক্তাররা তার রক্ত পরীক্ষা করে জানতে পারেন তিনি ক্রণিক লিউকমিয়া ক্যান্সারে আক্রান্ত। তার বেঁচে থাকার সম্ভাবনা খুবই কম। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত যত বাড়তে থাকে ততই সাইফুলের অবস্থা অবনতির দিকে যেতে থাকে। পরে মালয়েশিয়ান সময় বৃহস্পতিবার সকালে কর্তব্যরত চিকিৎসক সাইফুল ইসলামকে মৃত ঘোষণা করেন।

এদিকে হাসপাতালে তার মৃত্যুর সংবাদ শুনে বৃহস্পতিবার সকাল ৮ টায় হাইকমিশনার শহীদুল ইসলাম, শ্রম কাউন্সিলর মো: সায়েদুল ইসলাম, কমার্শিয়াল উইং ধননজয় কুমার দাস, পাসপোর্ট ও ভিসা শাখার ফার্স্ট সেক্রেটারি মো: মশিউর রহমান তালুকদারসহ সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীরা হাসপাতালে ছুটে যান। সাইফুল ইসলামের অকাল মৃত্যুতে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। সদা হাস্যোজ্জ্বল ও বিনয়ী এই সহকর্মীকে কেউই ভুলতে পারছেন না।

সাইফুল ইসলামের অকাল মৃত্যুতে রাষ্ট্রদূত শহীদুল ইসলাম ও দূতাবাসের সকল কর্মকর্তা, কর্মচারি সমবেদনা জানিয়েছেন। পাসপোর্ট অধিদপ্তরের সহ-পরিচালক আফজাউল ইসলাম বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় বিকেল সাড়ে ৬ টায় বাংলাদেশ বিমানের একটি ফ্লাইটে সাইফুল ইসলামের মরদেহ নিয়ে যাচ্ছেন বলে দূতাবাস সূত্রে জানা গেছে।

সূত্র জানায়, ১ জানুয়ারি বাংলাদেশ হাইকমিশনে উন্নত সেবা প্রদান ও সহযোগিতার লক্ষ্যে ঢাকা আগারগাঁও পাসপোর্ট অফিস থেকে ২৪ জনের একটি টিম মালয়েশিয়ায় আসে। তাদেরই একজন ছিলেন আগারগাঁও পাসপোর্ট অফিসের সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর মো: সাইফুল ইসলাম।

উল্লেখ্য, ঝালকাঠি জেলার নলসিটি থানার তিমিরকাটি গ্রামের মো: নুরুল ইসলামের ছেলে সাইফুল ইসলাম। তার জন্মস্থান ঝালকাঠি হলেও স্বপরিবারে থাকতেন ঢাকার দক্ষিণ শেওরাপাড়া এলাকায়। তিনি ২০০২ সালে ঢাকা আগারগাঁও হেড অফিসে অফিস সহকারী কম্পিউটার অপারেটর পদে চাকুরীতে যোগদান করেন। কাজের সুবাদে চলতি মাসের ১ তারিখ মালয়েশিয়া যান।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY