বিশ্ব ইজতেমায় থাকছে ৮ স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা

0
83

ধ্যাপক এমএ মান্নান, ঢাকা বিভাগীয় কমিশনার এম বজলুল করিম চৌধুরী, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. হেলাল উদ্দীন, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কেএম রাহাতুল ইসলাম, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হারুন অর রশিদ।

গাজীপুরের পুলিশ সুপার মুহাম্মদ হারুন অর রশীদ জানান, ইজতেমার মুসল্লিদের সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পুলিশের পক্ষ থেকে ৮ স্তরের নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। এজন্য ৭ হাজার পুলিশ সদস্য নিয়োজিত থাকবে। মুসল্লিদের নিরাপত্তার জন্য র‌্যাবের আড়াই হাজার সদস্য দায়িত্ব পালন করবে।

তিনি জানান, নিরাপত্তার জন্য ১৫টি ওয়াচ টাওয়ার, ৪১টি সিসি ক্যামেরা, নৌ টহল, আর্চওয়ে, মেটাল ডিটেকটর দিয়ে তল্লাশি, বোম ডিস্পোজাল টিম, ও ভিডিও ধারণ করা হবে। জেলা পুলিশের উদ্যোগে প্রতিটি খিত্তায় ৬ জন করে সাদা পোশাকে পুলিশ সদস্য নিয়োজিত থাকবে।

প্রস্তুতিমূলক সভায় জানানো হয়, ইতোমধ্যে ইজতেমা ময়দানে তাবু টানানোর কাজ প্রায় শেষের দিকে রয়েছে। গ্যাস, বিদ্যুৎ, টেলিফোন সংযোগ, পানি সরবরাহের জন্য সংশ্লিষ্ট বিভাগের কর্মীরা ময়দানে কাজ করছেন।

বিশ্ব ইজতেমার সার্বিক কার্যক্রম মনিটরিংয়ের জন্য গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন, জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, র‌্যাব, আনসার ও ভিডিপি পৃথক ৫টি কন্টোল রুম স্থাপন করা হয়েছে। দেশি-বিদেশি মুসল্লিদের অভিনন্দন ও স্বাগত জানাতে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে বিশ্ব ইজতেমা মাঠের প্রবেশ পথে ১৩টি তোরণ নির্মাণ করা হয়েছে। পুলিশের পক্ষে থেকে ১৫টি, র‌্যাবের পক্ষ থেকে ৯ টি ওয়াচ টাওয়ার নির্মাণ করা হয়েছে।

বিশ্ব ইজতেমায় আগত মুসল্লিদের ওযু, পয়:নিষ্কাষণ ও সুপেয় পানি সরবরাহের জন্য লক্ষ্য ইজতেমা মাঠে স্থাপিত ১৩টি গভীর নলকূপ দ্বারা ১৮ দশমিক ৫০ কিলোমিটার পাইপ লাইনের মাধ্যেমে প্রতিদিন ৩ কোটি ৫৪ লক্ষ গ্যালন সুপেয় পানি সরববরাহ নিশ্চিত করা হবে।

ইজতেমা মাঠের মুরুব্বী প্রকৌশলী গিয়াস উদ্দিন জানান, এবারে প্রথম ধাপে যে ১৬টি জেলা থাকছে সেগুলো হল- ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ, মাদারীপুর, গাইবান্ধা, শেরপুর, লক্ষীপুর, ভোলা, ঝালকাঠি, পটুয়াখালী, নড়াইল, মাগুরা, পঞ্চগড়, শরীয়তপুর, নীলফামারী, নাটোর ও বগুড়া।

তিনি জানান, ১৯ জানুয়ারি থেকে শুরু হবে ইজতেমার দ্বিতীয় ধাপ। ওই ধাপেও মোট ১৬ জেলার মুসল্লিরাঅংশগ্রহণ করবেন। দুই ধাপে মোট ৩২ জেলার মুসল্লি থাকবেন এবারের বিশ্ব ইজতেমায়। গাজীপুর জেলা এবছর অংশগ্রহণের তালিকায় নেই। কিন্তু টঙ্গীর বোর্ড বাজার থেকে তাবলীগ জামাতের ঢাকা এলাকা শুরু। সে হিসেবে গাজীপুর মহানগরের দক্ষিণ এলাকা ঢাকার সঙ্গে যুক্ত হয়ে এবার ইজতেমায় অংশগ্রহণ করবে।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY