জি-৭ সম্মেলনে অভিবাসী জলবায়ু সন্ত্রাসবাদে গুরুত্ব

0
151

ধনী দেশগুলোর সংগঠন গ্রুপ-৭ (জি-৭)-এর এবারের শীর্ষ সম্মেলন শেষ হচ্ছে অভিবাসী, জলবায়ু পরিবর্তন ও সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলায় করণীয় নিয়ে দিক নির্দেশনামূলক আলোচনার মাধ্যমে।

এবারের শীর্ষ সম্মেলনে অভিবাসী সংকট সমাধানকে উপজীব্য করা হলেও শেষ পর্যন্ত প্রধান আলোচ্য হয়ে ওঠে জলবায়ু পরিবর্তন ও সন্ত্রাসবাদ।

ট্রাম্পের বহুল আলোচিত প্রথম বৈদেশিক সফরের শেষ পর্যায়ে তিনি এখন ইতালির সিসিলিতে আছেন। ধনী দেশগুলোর সংগঠন জি-৭-এর ৪৩তম শীর্ষ সম্মেলনের মাধ্যমে সফর শেষ করবেন তিনি।

সিসিলির তাওর্মিনায় দুই দিনব্যাপী এই সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনে সদস্য দেশগুলোর সরকার ও রাষ্ট্রপ্রধানদের পাশাপাশি আমন্ত্রিত হয়েছেন তিউনিসিয়া, নাইজার, ইথিওপিয়া, কেনিয়া ও নাইজেরিয়ার নেতারা। অভিবাসী সমস্যা নিয়ে বহুপাক্ষিক আলোচনার জন্য এই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। অভিবাসী সমস্যার প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করতেই ইতালি এবারের সম্মেলন আয়োজন করেছে।

কার্বন নিঃসরণ কমাতে স্বাক্ষরিত ‘প্যারিস সমঝোতা’নিয়ে ট্রাম্পের বিরোধিতা অন্য দেশগুলোর জন্য মাথাব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। আশঙ্কা করা হচ্ছে, আমেরিকা সমঝোতা থেকে সরে দাঁড়ালে অন্যরাও তা নিয়ে প্রশ্ন তুলবে। তবে জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস বলেছেন, একটি দেশ নিজেকে সরিয়ে নিলেও সমঝোতা ভেস্তে যাবে না।

শনিবার ট্রাম্পের সফরের শেষ দিন। দেশে ফেরার পর ট্রাম্পকে মুখোমুখি হতে হবে তলানিতে থাকা জনপ্রিয়তা ও রুশ যোগসাজশের অভিযোগে চলমান তদন্তের। ট্রাম্পের প্রথম বিদেশ সফর বড় কোনো সাফল্য আনতে না পারলেও তিনি বড় কোনো ভুল করেননি- এমনটাই বলছেন বিশ্লেষকরা।

তথ্যসূত্র : বিবিসি অনলাইন

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY