মৃত্যুপুরী স্পেনে ২৪ ঘণ্টায় ৯৫০ জনের মৃত্যু, মোট ১০,০০৩

0
31

প্রাদুর্ভাব নিয়ন্ত্রণে ব্যাপক বিধি-নিষেধ আরোপ করা হলেও স্পেনে লাগামহীন হয়ে উঠেছে প্রাণঘাতী নতুন করোনাভাইরাস। বৃহস্পতিবার দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বলছে, গত ২৪ ঘণ্টায় স্পেনে নতুন করে আরও ৯৫০ জনের প্রাণ কেড়েছে করোনা। এছাড়া নতুন আক্রান্ত হয়েছেন আরও ৮ হাজারের বেশি মানুষ।

নতুন করে ৯৫০ জনের প্রাণহানি ঘটায় দেশটিতে করোনায় মৃতের সংখ্যা ১০ হাজার ছাড়িয়েছে। ইউরোপের দেশগুলোর মধ্যে ইতালির পর করোনার ভয়াবহ প্রকোপের মুখোমুখি হয়েছে স্পেন। দেশটিতে করোনার বিস্তার ঠেকাতে বিভিন্ন ধরনের ব্যবস্থা নেয়া হলেও তা সফল হচ্ছে না।

করোনায় আক্রান্ত এবং মৃতের সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ায় দেশটির স্বাস্থ্যসেবা খাত প্রায় ভেঙে পড়েছে। হাসপাতালে আইসিইউ সঙ্কটের কারণে অনেক রোগী যথাযথ চিকিৎসা ছাড়াই এই ভাইরাসের কাছে হার মানছেন।

বুধবার দেশটিতে ৭ হাজার ৭১৯ জন করোনায় আক্রান্ত হলেও গত ২৪ ঘণ্টায় সেই সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে; নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৮ হাজার ১০২ জন। এ নিয়ে ইউরোপের এই দেশে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১ লাখ ১০ হাজার ২৩৮ জনে। ইউরোপের আরেক দেশ ইতালিতে করোনায় মৃতের সংখ্যা ১৩ হাজার ছাড়িয়ে গেছে।

স্পেনের সরকার করোনা পরিস্থিতি শিগগিরই নিয়ন্ত্রণে আসবে বলে যে আশার বাণী শুনিয়েছিল, বৃহস্পতিবারের সংক্রমণ এবং প্রাণহানির তথ্য সেই আশায় চিড় ধরিয়েছে। একদিন আগেই দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী স্যালভাদর ইলা বলেছিলেন, পরিস্থিতি স্থিতিশীলতার দিকে যাচ্ছে এবং আমরা করোনার একটি ধীরগতির দিকে এগিয়ে যাচ্ছি।

করোনার বিস্তার ঠেকাতে স্পেনে গত ১৪ মার্চ জরুরি অবস্থা জারির পাশাপাশি নিত্যপ্রয়োজনীয় খাবার ও ওষুধের দোকানপাট ছাড়া অন্যান্য সব প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। দেশটির শ্রম মন্ত্রণালয় বলছে, করোনা পরিস্থিতির কারণে শুধু মার্চেই দেশটিতে তিন লাখের বেশি মানুষ বেকার হয়ে পড়েছেন।

গত বছরের ৩১ ডিসেম্বর চীনের উহানে করোনাভাইরাসের প্রথম উপস্থিতি ধরা পড়ার পর থেকে এখন পর্যন্ত বিশ্বের দুই শতাধিক দেশে ছড়িয়েছে। প্রাণঘাতী এই ভাইরাসে বিশ্বজুড়ে আক্রান্ত হয়েছেন ৯ লাখ ৫০ হাজার ৪৩০, মারা গেছেন ৪৮ হাজার ২৭৬ এবং সুস্থ হয়েছেন ২ লাখ ২ হাজার ৬২৭ জন।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY