বন্ধুর সমকামী সম্পর্কের প্রস্তাবে ‘না’, পরিণতি ভয়াবহ

0
13

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে পরিচয়, পরে বন্ধুত্ব পর্যন্ত সম্পর্ক গড়ায়। তারপর তাদের দু’জনের বেশ কয়েক বার দেখা হয়। এরপরই ঘটে বিপত্তি, রীতিমত সমকামী প্রেমের জন্য চাপ আসে।

কিন্তু শান্তুনু ভট্টাচার্য নামে এক স্কুলছাত্র তাতে মোটেই রাজি হয়নি। আর এ কারণেই ঘটল নির্মম ঘটনাটি। সমকামী সম্পর্ক না করার জেরে তিনি ওই বন্ধুর হাতে খুন হয়েছেন।

ভারতের কোচবিহার শহর লাগোয়া হরিণচওড়া এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটেছে।

ভারতীয় একটি গণমাধ্যমের প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়, গত মঙ্গলবার বিকেলে হরিণচওড়া এলাকায় তোর্সা নদীর পাড় থেকে শান্তনু ভট্টাচার্যের মরদেহ উদ্ধার হয়। নিহত শান্তনুর এ বছর মাধ্যমিক পরীক্ষা দেওয়ার কথা ছিল।

মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী শান্তুনু ভট্টাচার্যের এমন অস্বাভাবিক মৃত্যুতে রহস্যের সৃষ্টি হয়। পরে তদন্তে নেমে তার মোবাইল খতিয়ে দেখে শুভঙ্কর ঘোষের নাম জানতে পারে পুলিশ। এরপরই মূল অভিযুক্ত হিসেবে কোতোয়ালির ঘুঘুমারি এলাকার বাসিন্দা শুভঙ্করকে গ্রেফতার করা হয়। পরে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে চাঞ্চল্যকর সব তথ্য উঠে আসে।

শুভঙ্কর জানায়, তার সঙ্গে শান্তনুর ফেসবুকে পরিচয় হয়। তারপর বন্ধুত্ব। দুজনে বেশ কয়েকবার দেখাও করে। এর পরই শান্তনুর প্রতি আসক্ত হয়ে পড়েন তিনি। কিন্তু শান্তনু সমকামী সম্পর্কে যেতে রাজি হয়নি বলে দাবি শুভঙ্করের।

পুলিশ সূত্র জানায়, একপর্যায় শুভঙ্করের সঙ্গে যোগাযোগ কমিয়ে দেয় শান্তনু। সেই জের ধরে ক্ষোভ বাড়তে থাকে শুভঙ্করের।

পুলিশ আরও জানায়, মঙ্গলবার বিকেলেও শুভঙ্করের সঙ্গে ফোনে কথা বলেছিল শান্তনু। তার পর তারা তোর্সার চরে দেখা করে। সেখানেই সম্ভবত কথা কাটাকাটি হয় দুজনের। শান্তনুর গলায় দড়ির ফাঁস লাগিয়ে টান দেয় শুভঙ্কর। পরে অচৈতন্য অবস্থায় মাটিতে লুটিয়ে পড়ে শান্তনু।

এ ঘটনার পর বাড়ি চলে যায় শুভঙ্কর। বাড়ি থেকে ছুরি নিয়ে ফের ওই এলাকাতে ফিরে আসে সে। মৃত্যু নিশ্চিত করতে শান্তনুর গলায় ছুরি চালিয়ে দেয় শুভঙ্কর। এতে শ্বাসনালী কেটে যায় শান্তনুর।

শান্তনুর প্রতিবেশীরা অভিযুক্ত শুভঙ্কর গ্রেফতার হওয়ার পরই ক্ষোভে ফেটে পড়েন। পথ অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন তারা। একইসঙ্গে অভিযুক্তের কঠোর শাস্তির দাবি করেছেন শান্তনুর প্রতিবেশীরা।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY