পাকিস্তানের আদালতে নওয়াজ শরিফকে হাজির হওয়ার আদেশ

0
22

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফকে আগামী ২৪ নভেম্বরের আগে আদালতে হাজির হওয়ার আদেশ জারি করেছে ইসলামাবাদ হাইকোর্ট। হাজির না হলে তাকে ফেরারি আসামী ঘোষণা করা হবে। লন্ডনে নিজ বাসভবেন জামিন অযোগ্য গ্রেফতারি পরোয়ানা নিতে অস্বীকৃতি জানানোর পর এ আদেশ জারি হলো।

দেশটির জাতীয় দৈনিক ডন অনলাইনের এক প্রতিবেদন অনুযায়ী, শনিবার ইসলামাবাদ হাইকোর্টের রেজিস্ট্রার আল-আজিজিয়া স্টিল মিল এবং অ্যাভেনফিল্ড গ্রাফ্ট দুর্নীতি মামলায় পাকিস্তান মুসলিম লীগের (পিএমএল-এন) সর্বোচ্চ নেতা নওয়াজ শরিফের আপিলের কার্যক্রম নিয়ে একটি লিখিত আদেশ জারি করেছেন।

দুর্নীতির মামলায় দণ্ডিত হয়ে কারাগারে থাকার পর তিন বারের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ উন্নত চিকিৎসার জন্য আদালতের অনুমতি নিয়ে গত নভেম্বরে লন্ডনে যান। তখন থেকে তিনি লন্ডনেই অবস্থান করছেন। সম্প্রতি সেখান থেকে রাজনৈতিক কার্যক্রমে অংশ নেয়ায় গত ৫ অক্টোবর তার বিরুদ্ধে দেশে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা হয়।

গত ৭ অক্টোবর আদালত এ বিষয়ে লন্ডনে পাকিস্তান হাই কমিশনের ফার্স্ট সেক্রেটারি (কনস্যুলার অ্যাফেয়ার্স) দিলদার আলী আব্রো এবং কনস্যুলার অ্যাটিচি রাও আবদুল হান্নানের পাশাপাশি পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ইউরোপ-১ বিভাগের পরিচালক মোহাম্মদ মুবাশির খানের বিবৃতি রেকর্ড করেছিল।

তারা আদালতকে বলেছেন যে, আদালতে উপস্থিতি নিশ্চিত করতে নওয়াজ শরিফের বিরুদ্ধে জামিন অযোগ্য গ্রেফতারি পরোয়ানা কার্যকরে আদালতের আদেশের কার্যকরের চেষ্টা করা হয়েছিল। কিন্তু এ প্রচেষ্টা সত্ত্বেও ১৫ সেপ্টেম্বর ইসলামাবাদ হাইকোর্টের জারি করা পরোয়ানার কার্যকর করা যায়নি বলে জানিয়েছেন তারা।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, লন্ডনে তার বাসভবনে নওয়াজ শরিফের প্রতিনিধিদের মনোভাব দেখে বিরক্ত হয়ে উচ্চ আদালত ৭ অক্টোবর তাকে হাজির করার জন্য সংবাদপত্রগুলোতে বিজ্ঞাপন দেয়ার নির্দেশ দেন। ডন ও জাং পত্রিকায় বিজ্ঞাপনের ব্যয় বহন করার জন্য কেন্দ্রীয় সরকারকে নির্দেশও দেয় আদালত।

সরকার পরে আদালতকে বলেছিল যে, আদালত কর্তৃপক মনোনীত দৈনিকগুলোতে বিজ্ঞাপন প্রকাশের জন্য ৬০ হাজার রুপি প্রদান করা হয়েছিল।

আদালত নওয়াজ শরিফকে ২৪ নভেম্বরের মধ্যে হাজির হতে বলেছে, নইলে তাকে ঘোষিত অপরাধী হিসেবে চিহ্নিত করা হবে। এই ঘোষণার ফলে সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার পাশাপাশি পাসপোর্টও হারাতে হতে পারে তাকে।

আদালত ও সরকার তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য আট সপ্তাহের জন্য বিদেশে যাওয়ার অনুমতি দেয়ার পর নওয়াজ শরিফ গত বছরের নভেম্বর থেকে লন্ডনে অবস্থান করছেন। কিন্তু তিনি ফিরে আসেননি। পাকিস্তানের তিনবারের এই প্রধানমন্ত্রীর আইনজীবীরা আদালতে জানিয়েছিলেন যে, তিনি এখনও সুস্থ হয়ে উঠেননি।

রাজনীতিতে হস্তক্ষেপের জন্য সশস্ত্র বাহিনীকে দোষারোপ করে গত ২০ সেপ্টেম্বর কঠোর বক্তব্য রেখেছিলেন তিনি। ওই বক্তৃতার পর নওয়াজ শরিফের বিরুদ্ধে দুর্নীতির মামলায় আদালতে হাজির হওয়ার জন্য চাপ বাড়ছে।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY