টেস্ট ক্রিকেটারের ফাঁসি!

0
144

এটি একটি ভালোবাসার গল্প, কিংবা এটি একটি খুনের গল্প। এটি ক্রিকেটার লেসলি হিলটনের করুন পরিণতির গল্প। জ্যামাইকার এক দরিদ্র পরিবারে জন্ম লেসলি হিলটনের। দুর্দান্ত পেস বোলিং দিয়ে তিনি জায়গা করে নেন ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলে। তার টেস্টে অভিষেক হয় ১৯৩৫ সালে, ক্রিকেট ইতিহাসের সবচেয়ে অদ্ভুত ম্যাচে।

লেসলির জীবন কাহিনীতে প্রবেশের আগে সেই রহস্যময় ম্যাচের কথা একটু বলা যাক। বার্বাডোজে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ৮ জানুয়ারি ১৯৩৫ সালে টেস্ট ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হয়। সেই ম্যাচে প্রথম ইনিংসে ওয়েস্ট ইন্ডিজ মাত্র ১০২ রানে অলআউট হয়ে যায়। জবাবে ৮১ রানে ৭ উইকেট পড়ার পর সবাইকে অবাক করে ইনিংস ঘোষণা করে ইংল্যান্ড।

এরপর ক্যারিবীয়রা দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করার সময় ৬ উইকেটে ৫১ রান তুলে ঘোষণা করে ইনিংস। তখন ইংল্যান্ডের টার্গেট দাঁড়ায় মাত্র ৭৪ রান। সেই ম্যাচে ৪ উইকেটে জয় পায় ইংলিশরা৷ অবশ্য বাকি দুটি টেস্ট জিতে সিরিজ নিজেদের করে নেয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। সেই সিরিজে ১৬ উইকেট নেন লেসলি হিলটন।

চার বছর পর দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের আগে ১৯৩৯ সালে অবসর নেন তিনি। ফোরম্যান হিসেবে যোগ দেন জ্যামাইকান সিভিল সার্ভিসে। সেখানে প্রেমে পড়েন এক পুলিশ ইন্সপেক্টরের মেয়ের। সেই মেয়ের নাম লারলিন রোজ। মেয়েটির চেয়ে বংশ, অর্থ, সামাজিক মর্যাদা অনেক পিছিয়ে ছিলেন লেসলি।

তাই তাকে মেনে নিতে পারেনি রোজের উচ্চবিত্ত বাবা। কিন্তু লেসলিকে ছাড়া আর কাউকে বিয়ে করবে না জানিয়ে দেয় রোজ। জয় হয় প্রেমের শেষ পর্যন্ত বিয়ে হয় দুজনের। পরের বছর তাদের ঘরে সন্তানও আসে। লেসলির টানে উচু ঘর ছেড়ে আসা সেই রোজ এরপর চাকরির সুবাদে জান নিউইয়র্কে। আর সেখানে এসে আরেকটি প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে ফ্রান্সিস নামের বিত্তশালী পুরুষের সঙ্গে।

লেসলির নিউইয়র্কের বন্ধুরা প্রেমের ব্যাপারে জানিয়ে একটি টেলিগ্রাম করে। স্ত্রী জামাইকায় ফিরলে তাকে জেরা শুরু করে লেসলি। এক পর্যায়ে তার স্ত্রীর স্বীকার করে নেয় সম্ভ্রান্ত পরিবারে জন্ম নেওয়া উচ্চ শিক্ষিত এবং সংস্কৃতিপনা ফ্রান্সিসকেই তার পছন্দ।

একথা শুনে আর নিজের মাথা ঠিক রাখতে পারেননি লেসলি। অনেক অপমান তিরস্কার সংগ্রাম সয়ে মেয়েটিকে নিজের করে নিয়েছিল সেই কিনা এমন বিশ্বাসঘাতকতা করছে। তাই রাতে একে একে সাতটি গুলি করে নিজ স্ত্রীকে হত্যা করেন লেসলি।

স্ত্রীকে হত্যা করার অভিযোগে আদালত তাকে মৃত্যুদণ্ড দেয়। ১৯৫৫ সালের ১৭ মে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে দন্ড কার্যকর করা হয় লেসলির। স্ত্রীকে হত্যা করলেও কোনো এক অজ্ঞাত কারণে মানুষের ভালোবাসা পেয়েছিলেন তিনি। লেসলি হিলটনিই পৃথিবীর একমাত্র টেস্ট খেলোয়াড় যিনি হত্যার দায়ে মৃত্যুদণ্ড পেয়েছেন

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY