চীন সীমান্তে ৪৭টি নতুন সেনা চৌকি ভারতের, হুঁশিয়ারি বেইজিংয়ের

0
11

গালওয়ান ভ্যালি সংঘর্ষের পর থেকে ভারত-চীন সীমান্ত সংঘাত বেড়ে যাওয়ায় নড়েচড়ে বসেছে ভারত। খোদ দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর বলেছেন, গত কয়েক দশকে ভারত-চীন সীমান্তে এ রকম উত্তপ্ত অবস্থা দেখা যায়নি। এই অবস্থায় সংঘাতময় এই সীমান্তে নতুন করে ৪৭টি বর্ডার আউটপোস্ট (চৌকি) বসাচ্ছে ভারত-তিব্বত সীমান্ত পুলিশ (আইটিবিপি)। ভারতীয় একটি সংবাদমাধ্যম এই তথ্য জানিয়েছে।

সংবাদমাধ্যমটির তথ্যমতে, ১৯৬২ সাল থেকে সীমান্ত প্রহরার দায়িত্ব সামলাচ্ছে আইটিবিপি। এরই সঙ্গে করোনা পরিস্থিতি সামলাতে দেশের অভ্যন্তরে কাজ করেছে এই ট্রুপ। আইটিবিপি কাজ করে মাওবাদী অধ্যুষিত এলাকাতেও। ভারত-চীন সীমান্তে এই ৪৭টি চৌকি বসানোর ছাড়পত্র দিয়েছে কেন্দ্র। এরপরেই নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে।

সংবাদমাধ্যমটির প্রতিবেদনে আরও উল্লেখ করা হয়, ১২ অক্টোবর কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং দেশের সাতটি রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে ৪৪টি সেতু উদ্বোধন করেন। যার মধ্যে লাদাখ ও অরুণাচল প্রদেশও ছিল।

এর কারণ হিসেবে বলা হচ্ছে, সীমান্তে সংঘাতের জের ধরে কৌশলী অবস্থান নিয়েছে ভারত। খুব কৌশলে চীনা সেনাদের মোকাবিলায় প্রস্তুতি নেয়া শুরু করেছে সীমান্ত বাহিনী। তারই অংশ হিসেবে লাদাখে তৈরি হচ্ছে একের পর এক ব্রিজ। যাতে খুব কম সময়ে ট্রুপের মুভমেন্ট ঘটানো যায়। গোটা দেশে ছড়িয়ে থাকা ৪৪টি ব্রিজের উদ্বোধন করেছেন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী। এর মধ্যে আটটি সেতু তৈরি হয়েছে লাদাখে।

তবে ভারতের এই প্রস্তুতিকে মোটেও ভালোভাবে নিচ্ছে না চীন। অবিলম্বে সীমান্তে নির্মাণ কাজ বন্ধের আহ্বান জানিয়েছে বেইজিং। অন্যথায় পরিস্থিতি আরও খারাপ হতে পারে হুমকি দিয়েছে দেশটি। এছাড়া দুই দেশের সম্পর্কের অবনতির এই অবস্থায় ভারতের ভূমিকাতে চীন হতাশ বলেও মন্তব্য করা হয়েছে।

প্রতিরক্ষামন্ত্রীর উদ্বোধন করা ৪৪টি গুরুত্বপূর্ণ ব্রিজের মধ্যে জম্মু-কাশ্মীরে ১০টি, লাদাখে আটটি, হিমাচল প্রদেশে দুটি, পাঞ্জাবে চারটি, উত্তরাখণ্ডে আটটি, অরুণাচল প্রদেশে আটটি, সিকিমে চারটি ব্রিজ তৈরি করা হয়েছে।

লাদাখে আটটি ব্রিজের মধ্যে তিনটি তৈরি হয়েছে জোজিলা-কার্গল-লেহ রোডের ওপর। দুটি তৈরি হয়েছে খালসার-সাসোমা রোডের ওপর, একটি সাংকো-কুনোরে-সাপিলা-মুলবেক রোড, নিম্মু-পদম-দরচা রোড ও দরবক-শায়ক-দৌলত বেগ ওল্ডি রোডের ওপর।

সংবাদমাধ্যমটির প্রতিবেদন বলছে, প্রতিটি ব্রিজই ২৪ থেকে ৮০ মিটার লম্বা। মোট ৪৫ কোটি টাকা ব্যয়ে তৈরি হয়েছে এই আটটি ব্রিজ।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY