‘গো-মাতার জয়’ বলিয়ে উঠবস করানো হলো মুসলিম ও আদিবাসীদের

0
10

২৫ জন ব্যক্তিকে কোমরে দড়ি বেঁধে ‘গো মাতার জয়’ বলতে বাধ্য করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। তার আগে ওঠবোসও করানো হয় তাদের আর তারপরে কোমরে দড়ি বাঁধা অবস্থাতেই মিছিল করিয়ে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। এদের মধ্যে ৬-৭ জন মুসলমান আর বাকিরা আদিবাসী।

এ ঘটনা ঘটেছে ভারতের মধ্যপ্রদেশের খান্ডোয়া জেলায়। বিবিসির বাংলার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, প্রায় শ খানেক তথাকথিত গোরক্ষক ওই ঘটনার সঙ্গে জড়িত বলে পুলিশের কাছে অভিযোগ করা হয়েছে।

খান্ডোয়া জেলার পুলিশ জানিয়েছে, সাওলীখেড়া গ্রামের মানুষরা আটটি গাড়িকে আটক করে, যেগুলোতে ২২টি গরু নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। বাসিন্দারা গাড়ি আটকের পর গরু নিয়ে যাওয়ার নথি দেখতে চান। কোনও নথি না দেখাতে পারায় ওই ২৫ জন আদিবাসী আর মুসলমানদের আটক করে পুলিশে খবর দেওয়া হয়। বলা হয় যে, ওই ২৫ জন আসলে গরু চুরি করে মহারাষ্ট্রে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছিলেন।

বিবিসির সুরেইয়া নিয়াজি জানান, পুলিশ পৌঁছানোর আগেই কোমরে দড়ি বেঁধে উঠ-বস করানো হয় আর ‘গোমাতার জয়’ বলানো হয়। পরে তাদের দড়ি বাঁধা অবস্থাতেই হাটিয়ে থানায় নিয়ে যান গ্রামবাসীরা।

খান্ডোয়া জেলার পুলিশ সুপারিন্টেডেন্ট শিবদয়াল সিং বলেন, নথিপত্র ছাড়া গরু নিয়ে যাওয়ার অভিযোগে মামলা দায়ের হয়েছে। এদের গ্রেফতারও করা হয়েছে। আর যারা এই ২৫ জনকে আটক করেছিল, তাদের বিরুদ্ধেও অভিযোগ জমা পড়েছে। গ্রামবাসীরা সময়মতো পুলিশকে খবর দেয় নি, উল্টো ওই ২৫ জনের সঙ্গে দুর্ব্যবহারও করেছেন।

যে এলাকার ঘটনা এটা, সেই খালওয়া থানার অফিসার ইনচার্জ হরি সিং রাওয়াত জানান, ধৃতদের কাছ থেকে ২২টি গরু বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। তিনি বলেন, আটটা গাড়িতে অনুমতি ছাড়াই এগুলো নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। আবার তিনজন গোরক্ষক আর ১২ জন গ্রামবাসীর বিরুদ্ধেও মামলা দায়ের হয়েছে।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY