অধিনায়ক স্মিথে মুগ্ধতা বেড়েছে রনির

0
28

বাংলাদেশের ঘরোয়া মাঠে ক্রিকেট লিগের সবচেয়ে বড় প্ল্যাটফর্ম বিপিএল।। প্রথমবার ষষ্ঠ আসরে খেলতে এসেই কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের অধিনায়কত্ব পান স্টিভ স্মিথ। তবে এই অধিনায়ক স্মিথের প্রতি মুগ্ধ তার সতীর্থরা। রংপুর রাইডার্সের বিপক্ষে লো-স্কোরিং ম্যাচেও আক্রমণাত্মক ছিলেন স্মিথ। তাতেই অধিনায়ক স্মিথে মুগ্ধতা বেড়েছে পেসার আবু হায়দার রনির কাছে।

বাহির থেকে এসেই প্রথমে স্মিথ যে অধিনায়কত্ব পাবেন সেটা হয়তো শুরুরদিকে ভাবেনি কেউ। অধিনায়ক হিসেবে প্রথম ম্যাচ ছিল অস্ট্রেলিয়া দলের তার সতীর্থ ডেভিড ওয়ার্নারের সিলেট সিক্সার্সের বিপক্ষে। বিপিএলে প্রথম ম্যাচেই অধিনায়ক হিসেবে জয় পায় স্মিথের কুমিল্লা। তখনই তামিম বলেছিলেন দলের সব ক্রিকেটারদেরই দৌড়াচ্ছেন স্মিথ।

এদিকে মাশরাফির রংপুর রাইডার্সের বিপক্ষে ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় মাত্র ৬৩ রানেই অলআউট হয় কুমিল্লা। এত ছোট লক্ষ্য দিয়েও মাঠে রক্ষণাত্মক ছিলেন না স্টিভ স্মিথ। বরং এত অল্প টার্গেটেও ছিলেন বরাবরের মতো আক্রমণাত্মক। আর এটিই বেশি মুগ্ধ করেছে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের পেসার আবু হায়রদার রনিকে।

‘এটা একটি ইতিবাচক দিক। আমি ওর অধিনায়কত্বে একটা জিনিস দেখলাম। আমরা ৬৩ রান করেছি কিন্তু সে কখনই রক্ষণাত্মক ছিল না। সব সময় আক্রমণাত্মক ছিল। সব সময় একটা কথাই বলেছে, নতুন বলে আমি যদি সুইং করিয়ে আউট করতে পারি তাহলে তা দলের জন্যই ভালো। এটাই আমাকে বারবার বলছিল।’

মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে স্লো-উইকেটে ব্যাটসম্যানদের জন্য রান করাটা একটু কষ্টের। বিপিএলের প্রথম ম্যাচেই এই উইকেটে চিটাগং ভাইকিংসের বিপক্ষে ৯৮ রানে অলআউট হয়েছিলো ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন রংপুর রাইডার্স। ঐ দলের বিপক্ষে একই উইকেটে স্মিথরা কিনা অলআউট হয়েছে মাত্র ৬৩ রানে!। স্মিথ, তামিম, মালিক, এনামুল, লুইস, ইমরুল… এত তারকা ক্রিকেটারদের নিয়েও এত অল্প পুঁজি? অবশ্য দলের ব্যর্থতার পরেও উইকেটে কোন সমস্যা দেখছেন না রনি।

‘উইকেটের দোষ দিয়ে আসলে লাভ নেই। আমরা ব্যাটসম্যানরা বাজে ভাবে আউট হয়েছি। আমি আগেই বলেছি মাশরাফি ভাই ভালো বোলিং করেছেন। আমরা ব্যাটসম্যানরা যদি আরেকটু দায়িত্ব নিয়ে খেলতে পারতাম তাহলে ১৩০ থেকে ১২০ হলেও এখানে চ্যালেঞ্জিং হতো। ওদের ৬৪ তাড়া করতে গিয়ে ১০ ওভারের (আসলে ১২ ওভার) মতো লেগেছে, আমরা যদি ১২০-১৩০ করতে পারতাম তাহলে খুব চ্যালেঞ্জিং ম্যাচ হতো।’

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY