হচ্ছে না করপোরেট লিগ, তিন দলের ওয়ানডে সিরিজ নিয়ে ভিন্ন চিন্তা

0
14

শ্রীলঙ্কা সফর বাতিল হওয়ার পর থেকেই শোনা যাচ্ছে, খুব শিগগিরই মাঠে গড়াবে ঘরোয়া ক্রিকেট। অন্যদিকে বেশ কিছুদিন অনুশীলন করা জাতীয় দলের ক্রিকেটারদেরও ম্যাচ প্র্যাকটিস হয়ে যাচ্ছে। তারা দু’দিনের প্রস্তুতি ম্যাচ খেলছেন।

একটি এরই মধ্যে শেষ হয়ে গেছে। সোমবার শুরু হয়েছে দ্বিতীয় এবং শেষ ম্যাচটি। এখন কৌতুহলী প্রশ্ন একটাই, কি দিয়ে শুরু হবে ঘরোয়া ক্রিকেট? কর্পোরেট লিগ নিয়ে কথা হচ্ছে খুব।

শেরে বাংলায় জোর গুঞ্জন, প্রিমিয়ার লিগ আর বিসিএলের আগেই অনুষ্ঠিত হবে কর্পোরেট লিগ টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট। কিন্তু ভেতরের খবর, কর্পোরেট লিগ হচ্ছে না।

‘কর্পোরেট লিগ হবে না’- এখনও পর্যন্ত বোর্ডের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে এমন কোন ঘোষণা না আসলেও, বোর্ডের নীতি নির্ধারকদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, এই লিগটি আয়োজনের সম্ভাবনা খুব কম।

ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির প্রধান আকরাম খান জাগো নিউজের সাথে আলাপে বলেছেন, ‘আমরা নীতিগতভাবে কর্পোরেট লিগ আয়োজন করতে আগ্রহী। এখন সেটা নির্ভর করবে কর্পোরেট হাউজগুলোর ইচ্ছের ওপর।’

বলার অপেক্ষা রাখে না, করোনায় আর্থিকভাবে কম-বেশি ক্ষতিগ্রস্ত সব ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। অনেক প্রতিষ্ঠানেই বেতন কমানোর পাশাপাশি কর্মী ছাঁটাই ও ব্যয় সংকোচন প্রক্রিয়া চলছে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বিসিবির বিভিন্ন আয়োজনে যেসব কর্পোরেট হাউজ ও ব্যাংক উৎসাহ দেখায় এবং সম্পৃক্ত থাকে- আর্থিক কারণে এবার তাদেরই উৎসাহ কম।

এক কথায় এখনও পর্যন্ত কোনো কর্পোরেট হাউজই আগ্রহী নয়। করোনার এখনো যে অবস্থা, তাতে এখন কর্পোরেট হাউজগুলোর টিম স্পন্সর করায় এগিয়ে আসার সম্ভাবনা সত্যিই কম। মোটকথা, করোনাকালীন সময়ে কর্পোরেট লিগ আয়োজন করাই দায়।

এদিকে আকরাম খানের কথায় বোঝা গেছে, কর্পোরেট লিগ আয়োজন করতে না পারলেও বিসিবি বিসিএল, বিসিবি লিগ এবং প্রিমিয়ার লিগ আয়োজনের চিন্তা ভাবনা করছে।

এর মধ্যে প্রিমিয়ার লিগ এ বছরের শেষ দিকে করে ফেলার চিন্তা ভাবনা চলছে। তার আগে জাতীয় দল ও এইচপি বহর মিলে তিন দলের অংশগ্রহণে একটি ওয়ানডে সিরিজ অনুষ্ঠিত হবে এবং আগামী ১১ অক্টোবর ওই আসর শুরু হবে। খেলা হবে ডাবল লেগ পদ্ধতিতে। ২৩ অক্টোবর প্রতিযোগিতার ফাইনাল।

বিসিবি পরিচালক ও ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান আকরাম খান আজ সোমবার বিকেলে জাগো নিউজকে জানিয়েছেন, জাতীয় দল ও এইচপি বহরকে নিয়ে যে ওয়ানডে সিরিজ হবে, তার সবকটা খেলাই হবে দিবা-রাত্রির।

অকরাম আরও জানান যে, আমরা কিছু বিকল্প টুর্নামেন্ট আয়োজনের কথা ভাবছি। তার তিনটি তিন ফরম্যাটের। একটি প্রিমিয়ার লিগ অন্যটি বিসিএল, দীর্ঘ পরিসরের লিগ এছাড়া একটি টি-টোয়েন্টি আসর করার চিন্তাও চলছে।

তবে আকরাম নিশ্চিত করেছেন, যে আসরই হোক না কেন, তা কোনোভাবেই নভেম্বরের মাঝামাঝি সময়ের আগে শুরু হবে না। ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটি পরিচালক আরও জানান, ‘জাতীয় দল ও এইচপির ৫০ ওভারের টুর্নামেন্ট শেষ হবে ২৩ অক্টোবর। তারপর অন্য প্রতিযোগিতামুলক আসর শুরু হবে ১৫ নভেম্বর নাগাদ।’

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY