মাশরাফিকে ছাড়াই তিন দলের ওয়ানডে সিরিজ

0
16
বর্ষসেরা নির্বাচনে মাশরাফি-সাকিবদের যেভাবে ভোট দেবেন
বর্ষসেরা নির্বাচনে মাশরাফি-সাকিবদের যেভাবে ভোট দেবেন

তিনি টেস্ট খেলেন না। তাই শ্রীলঙ্কা সফরের প্রস্তুতি পর্বে তার থাকার কথাও ছিল না। আর লঙ্কা মিশন উপলক্ষে করা ৩৮ জনের পুলে ছিলেন না মাশরাফি বিন মর্তুজা; কিন্তু একদিনের ক্রিকেট থেকে তো এখনো আর সরে দাঁড়াননি টাইগারদের সাবেক ওয়ানডে অধিনায়ক।

অধিনায়কত্ব ছাড়লেও একদিনের ক্রিকেট থেকে এখনো আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেননি; কিন্তু কঠিন সত্য হলো, করোনার মধ্যে জাতীয় পুলের ও এইচপির ক্রিকেটারদের নিয়ে যে একটি ওয়ানডে সিরিজ হতে যাচ্ছে, সেখানে থাকছেন না মাশরাফি বিন মর্তুজা।

বিসিবির উচ্চ পর্যায়ের এক দায়িত্বশীল সূত্র নিশ্চিত করেছে যে, আগামী ১১ অক্টোবর থেকে জাতীয় দল ও এইচপির ক্রিকেটারদের নিয়ে একটি টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হবে। সেখানে তিনটি দল খেলবে।

আগামীকাল সোমবার ওই তিন দলের খেলোয়াড় তালিকাও ঘোষণা করা হবে বলে জানা গেছে। জাগো নিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করে প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল অবেদিন নান্নু আজ রোববার বলেন, ‘জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা যে গত দু’দিন (২ ও ৩ অক্টোবর) প্রথম ২ দিনের প্রস্তুতি ম্যাচ খেলেছে, তারপরের ম্যাচটি হবে আগামী ৫ ও ৬ অক্টোবর। এরপর ক’দিন বিরতি দিয়ে ১১ অক্টোবর থেকে শুরু হচ্ছে তিন দলকে নিয়ে একটি ওয়ানডে আসর। তিন দলের সবাই একেক দলের বিপক্ষে দুই বার করে খেলবে। সে কারণেই ডাবল লেগের আসরের রবিন লিগ ১১ অক্টোবর শুরু হয়ে ১৩, ১৫, ১৭, ১৯ ও ২১ অক্টোবর পর্যন্ত চলবে। আর ২৩ অক্টোবর ফাইনাল।

প্রধান নির্বাচকের কাছে জানতে চাওয়া হয়েছিল, এই টুর্নামেন্টে কারা কারা কারা খেলবেন? উত্তরে নান্নু জানান, ‘আমরা শ্রীলঙ্কা সফরের আগে যে ৩৮ জনের পুল করেছিলাম, তার বেশিরভাগ ক্রিকেটারই খেলবে ওই টুর্নামেন্টে। নান্নু নিশ্চিত করেন, শ্রীলঙ্কা সফর সামনে রেখে যে ২৭ জনকে প্রাথমিক দলে রাখা হয়েছিল এবং যাদের জিও করা হয়েছিল, তাদের প্রত্যেকের দলে থাকা নিশ্চিত। সাথে আরও তিনজন যুক্ত হবেন। অর্থ্যাৎ, মোট ৩০ জন আর সাথে এইচপি থেকে যোগ হবে আরও ৪৫ জন। প্রতি দলে থাকবে ১৫ জন করে।

এই ৪৫ জনে কি মাশরাফি থাকবেন? নান্নুর জবাব, ‘না না ওই তালিকায় মাশরাফির নাম নেই। কেন নেই? এটাতো ওয়ানডে সিরিজ, আর মাশরাফি তো আর ওয়ানডে থেকে অবসর নেননি। তাহলে তাকে ছাড়া টুর্নামেন্ট?

নান্নুর ব্যাখ্যা, ‘মাশরাফি প্র্যাকটিসে নেই। আমাদের সাথে কোন যোগাযোগও করেনি। যারা প্র্যাকটিসে আছে, আমরা তাদেরকেই মূলতঃ বিবেচনায় এনেছি। মাশরাফি তো আর প্র্যাকটিস করেনি। সেভাবে ক্রিকেটেও নেই।’

প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নুর কথা শুনে মনে হয়েছে, ‘মাশরাফি শুধু এই নিজেদের ভিতরের টুর্নামেন্টেই নন, আগামীতে জাতীয় ওয়ানডে দলেও থাকবেন কি না, সন্দেহ। আর সে কারণেই হয়ত নান্নুর মুখ থেকে বেড়িয়ে এসেছে, মাশরাফি আমাদের কোন পরিকল্পনায় নেই। জাতীয় দলের কোন কর্মকান্ডে তার কথা সেভাবে আলোচিত হয়নি।’

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY